কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৪ মে ২০১৮

কৃষক সংগঠনের জন্য আর্থিক সেবা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের প্রারম্ভিক কর্মশালা


প্রকাশন তারিখ : 2018-05-14

মিসিং মিডল ইনিশিয়েটিভ (এম এম আই)
কৃষক সংগঠনের জন্য আর্থিক সেবা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের প্রারম্ভিক কর্মশালা


টেকসই কৃষক সংগঠন তাদের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক সদস্যদের বাজার, কারিগরি জ্ঞান, মূল্য সংযোজন ধারা, তথ্য এবং অর্থায়ন নাগালের মধ্যে পেতে সেবা প্রদান করতে পারে। আধুনিক কৃষির জ্ঞান বিস্তার, বাজার ও কৃষি উপকরণ নাগালের মধ্যে পেতে কৃষক সংগঠন শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারে। কৃষি ও কৃষক বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল ভিত্তি। স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের যে অগ্রগতি তা কৃষির মাধ্যমেই হয়েছে।

 

১৩ মে ২০১৮ তারিখে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি)-এর অডিটোরিয়ামে মিসিং মিডল ইনিশিয়েটিভ (এমএমআই): বাংলাদেশ কৃষক সংগঠনের জন্য আর্থিক সেবা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্প-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী এসব কথা বলেন তিনি। প্রকল্পটিতে অর্থায়ন করছে গ্লোবাল এগ্রিকালচার অ্যান্ড ফুড সিকিউরিটি প্রোগ্রাম (জিএএফএসপি)।

 

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমাদের মনসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে। কৃষকদের প্রতি দরদী মনোভাব নিয়ে তাদেরকে উৎসাহিত করতে হবে। প্রযুক্তি এখন অনেক এগিয়ে গেছে। তাদের মধ্যে নতুন উদ্ভাবন, বিজ্ঞানীদের নতুন নতুন আবিষ্কার ছড়িয়ে দিতে হবে।

 

তিনি বলেন, কেউ ক্ষুদ্র চাষী, কেউবা খামারি, কেউ ভূমিহীন কৃষি শ্রমিক। শ্রেণির তফাৎ থাকলেও এদের রুজি-রোজগার কৃষি উৎপাদনের ওপর নিভর্রশীল। সবার সম্মিলিত প্রয়াসে দেশে গড়ে উঠেছে প্রায় লক্ষাধিক খামারি দল। ক্রমেই এ দল হয়ে উঠছে কৃষির প্রাণ।

 

তিনি আরও বলেন, একদিকে জমির পরিমাণ কমছে, অন্যদিকে মানুষ বাড়ছে। অথচ উৎপাদন অনেক বেড়েছে। এটি এমনি হয়নি। এজন্য সরকার ১০ টাকায় ব্যাংক একাউন্ট, কম সুদে ঋণ, ভূমিহীনদের সহজে ঋণ প্রদানসহ নানা উদ্যোগ নিয়েছে।

 


মন্ত্রী বলেন, প্রাইভেট ব্যাংকের রেকর্ড খুব একটা ভালো না। প্রাইভেট ব্যাংক কৃষকদের খুব একটা সহযোগিতা করে না। আপনারা কেউ চাইলে এর ডাটা নিয়ে আমার সঙ্গে বসতে পারেন। আমার কাছেও তথ্য আছে। তারা কৃষকদের খুব একটা পাত্তা দেয় না। কৃষকদের পাশে সরকারি ব্যাংকগুলোই বেশি থাকে।

 

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ্ সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর ফজলে কবীর ও জিএএফএসপি-এমএমআই ওয়াশিংটনস্থ সমন্বয়ক ড. ইফতিখার মোস্তফা। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার বাংলাদেশ প্রতিনিধি ডেভিড ডোলান। কর্মশালার উদ্বোধনী অধিবেশনে এমএমআই প্রকল্পের ওপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক (উপকরণ) কাজী মো. সাইফুল ইসলাম। গ্লোবাল এগ্রিকালচার এন্ড ফুড সিকিউরিটি প্রোগ্রাম (জিএএফএসপি): মিসিং মিডল ইনিশিয়েটিভ্স (এমএমআই)'-এর অর্থায়নে ২০ কোটি টাকার এই প্রকল্