কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ নভেম্বর ২০১৭

নওগাঁর সাপাহারে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের প্রণোদনা বিতরণের উদ্বোধন


প্রকাশন তারিখ : 2017-11-02

নওগাঁর সাপাহার উপজেলা ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের কৃষি পূর্নবাসন কর্মসুচীর আওতায় চলতি ২০১৭-১৮ রবি মৌসুমে উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে গত ০১ নভেম্বর/২০১৭ উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে রবি ও খরিপ-১ প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকিত করেন ৪৬ নওগাঁ-১ (সাপাহার, পোরশা ও নিয়ামতপুর) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব সাধন চন্দ্র মজুমদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মো: শামসুল আলম শাহ চেীধুরী এবং অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাপাহার উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মো: ফাহাদ পারভেজ বশুনীয়া।

 

উদ্বোধনীর শুরুতেই সাপাহার উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ জনাব এফ এম গোলাম ফারুক হোসেন তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, চলতি ২০১৭-১৮ মৌসুমে কৃষি পূর্নবাসন কর্মসুচীর আওতায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে ভুট্টা, ডাল, তেল ও সবজি উৎপাদন বৃদ্ধি কল্পে ভুট্টা আবাদে বীজ ২ কেজি ও সরিষা আবাদে বীজ ১ কেজি এবং সার হিসাবে ডিএপি ২০ কেজি, এমওপি ১০ কেজি, মুগ চাষে বীজ ৫ কেজি, ১০ কেজি হারে ডিএপি ও এমওপি এবং বিটি বেগুন চাষে বীজ ২০ গ্রাম, ১৫ কেজি হারে ডিএপি ও এমওপি সার প্রদানের ব্যবস্থা নিয়েছে। এলক্ষ্যে সাপাহার উপজেলায় ভুট্টায় ৭৫ বিঘা আবাদের জন্য ৭৫ জন, সরিষা ১২০০ বিঘা আবাদের জন্য ১২০০ জন, মুগ ১০০ বিঘা আবাদের জন্য ১০০ জন এবং বিটি বেগুন ২ বিঘা আবাদের জন্য ২ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষককে প্রণোদনা প্রদান করা হচ্ছে। এই সকল সরকারি প্রণোদনার সহায়তা কাজে লাগিয়ে ভুট্টা, সরিষা, মুগ ও বেগুন আবাদ বৃদ্ধিতে এগিয়ে আসার জন্য তিনি উপস্থিত কৃষকদের অনুরোধ জানান।

 

প্রধান অতিথি মহোদয় তাঁর বক্তব্যে বলেন, বরেন্দ্র এলাকা বলে খ্যাত নওগাঁ জেলার মধ্যে সাপাহার উপজেলা অন্যতম। এই উপজেলা আমন ধান, গম, সবজি ও ফল চাষ উল্লেখযোগ্য পরিমান হয়। এখানে রোপা আমন ধান, গম ও সবজি সংগ্রহের পর জমি পতিত থাকে তাই সে সময়ের মধ্যে ভুট্টা, সরিষা ও মুগ ফসলের আবাদ সম্পন্ন করা সম্ভব। তাই কৃষি পূর্নবাসন কর্মসুচীর আওতায় বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকার ভুট্টা, ডাল, তেল ও বেগুন ফসলের আবাদ বৃদ্ধির জন্য প্রণোদনা সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা নিয়েছে। এই প্রণোদনা সহায়তা কাজে লাগিয়ে প্রণোদনা গ্রহণকারি কৃষকদের ভুট্টা, ডাল ও তেল ফসল বৃদ্ধির আহ্বান জানান এবং পরিশেষে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীগণকে কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতার মাধ্যমে কৃষি উন্নয়নে এগিয়ে আসার উদাত্ব আহ্বান জানান।

 

উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিকসহ প্রায় ১৪০০ জন প্রণোদনা সহায়তা গ্রহণকারী ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা ডিপ্লোমা কৃষিবিদ মো: আতাউর রহমান সেলিম।
                                                                          


 

 

 


Share with :
Facebook Facebook