কৃষি তথ্য সার্ভিস (এআইএস) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

বঙ্গবন্ধুর অবদানে বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সির কার্যাবলি ও অর্জন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামলে ১ম জাতীয় পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার (১৯৭৩-৭৮) আওতায় বীজের মান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা হিসেবে ১৯৭৪ সালে ২২ জানুয়ারি বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে উৎপাদিত ও বাজারজাতকৃত নিয়ন্ত্রিত ফসলের (ধান, গম, পাট, আলু, আখ, মেস্তা ও কেনাফ) বীজের প্রত্যয়ন ও মান নিয়ন্ত্রণে সংস্থাটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে।


সরকারি পর্যায়ে উদ্ভাবিত জাতের গুণগত মান যাচাই এবং উৎপাদিত বীজের উৎকর্ষতা নিরূপণ করত বীজ প্রত্যয়ন টাগ বা সার্টিফিকেট প্রদানের দায়িত্ব প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সির ওপর অর্পিত হয়। দেশে কৃষি ফসলের জাত পরীক্ষাপূর্বক ছাড়করণ/ নিবন্ধন থেকে শুরু করে মাঠ পরিদর্শন ও প্রত্যয়ন, পীক্ষাগারে ও কন্ট্রোল ফার্মে বীজের মান পরীক্ষণ, প্রত্যয়ন ট্যাগ ইস্যুকরণ, মার্কেট মনিটরিং এবং বীজ আইন ও বিধিমালা লঙ্ঘনকারীদের বিরদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহণ পর্যন্ত সংস্থাটির কার্যক্রম সম্প্রসারিত।
কার্যাবলি :
-   নিয়ন্ত্রিত ফসলের জাত মূল্যায়ন ও ছাড়করণ কার্যাদির সমন্বয় সাধন;
-  নিয়ন্ত্রিত ফসলের ব্রিডার, ভিত্তি ও প্রত্যায়িত শ্রেণির বীজ প্রত্যয়ন করা;
-   পরিদর্শন ও বীজ পরীক্ষার মাধ্যমে উৎপাদিত ও বাজারজাতকৃত বীজের মাননিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব পালন;
-  দি সিকিউরিটি প্রিন্টিং  করপোরেশন (বাংলাদেশ) লিঃ হতে ট্যাগ মুদ্রণপূর্বক সন্তোষজনক ফলাফলের ভিত্তিতে আঞ্চলিক বীজ প্রত্যয়ন অফিসার কার্যালয়ের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার কর্তৃক ট্যাগ সরবরাহ নিশ্চিত ও তদারকি করা;
-  অনুমোদিত বীজ ডিলার কর্তৃক বিক্রীত বীজের মান সঠিক আছে কি না যাচাই করার লক্ষ্যে মার্কেট মনিটরিংয়ের মাধ্যমে বীজ আইন, ২০১৮ এর বিধানসমূহ প্রয়োগ করা/ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা।

 

অর্জন :
- বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সি প্রতিষ্ঠালগ্নে ১২,০০০ মে.টন বীজ প্রত্যয়ন করা হয়েছিল। বর্তমানে ৩৯,৫০০ হেক্টর জমির মাঠ প্রত্যয়নের মাধ্যমে ১,৬০,৬২৯ মে.টন বীজ প্রত্যয়ন করা হচ্ছে;
- ডিইউএস ভিসিইউ পরীক্ষার মাধ্যমে এ পর্যন্ত মোট ইনব্রিড ধানের ১১৮টি, গমের ৩৫টি, আলুর ৮১টি, আখের ৪৬টি, আশ জাতীয় ফসলের ৫০টি জাত ছাড়করণ এবং হাইব্রিড ধানের ১৭৩টি জাত নিবন্ধন করা হয়;
- প্রি-পোস্ট কন্ট্রোল গ্রো-আউট টেস্ট এর মাধ্যমে জাতের কৌলিক বিশুদ্ধতা যাচাই করে উৎপাদনকারী ও প্রত্যয়নকারীদের পরামর্শ প্রদান করা হয়;
- পূর্বে শুধুমাত্র বিএডিসি কর্তৃক উৎপাদিত বীজ প্রত্যয়ন করা হতো। বর্তমানে প্রায় ৫০০ নিবন্ধিত বীজ উৎপাদনকরীদের প্রত্যয়ন সেবা প্রদান করা হচ্ছে।
-  বর্তমানে মার্কেট মনিটরিংয়ের মাধ্যমে ২,৭০৬টি বীজ নমুনা সংগ্রহপূর্বক পরীক্ষা করা এবং বীজ আইন লঙ্গনকারীদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৬৭,০০০ টাকা জরিমানা করা হয়।
প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে অচিরেই দেশে একটি শক্তিশালী বীজ শিল্প গড়ে উঠবে, বীজের মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে, দেশে টেকসই খাদ্য নিরাপত্তা অর্জিত হবে এবং দেশ কাক্সিক্ষত সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে- এ আমাদের দৃঢ়বিশ্বাস।

 

কিংকর চন্দ্র দাস
পরিচালক, বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সি, গাজীপুর, ফোন : ৪৯২৭২২০০, ই-মেইল : dir.sca.gov.bd@gmail.com


Share with :

Facebook Facebook